২৯ জুন, ২০১৯

ফেসবুকে-ইউটিউবে হস্তক্ষেপে ক্ষমতা অর্জন করবো: মোস্তফা জব্বার





ডাক ও টেলিযোগযোগ মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার বলেছেন, ‘আগামী সেপ্টেম্বর মাসের পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও ইউটিউবে হস্তক্ষেপ করার সক্ষমতা অর্জন করবে সরকার।’

শনিবার (২৯ জুন) বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত ‘তারুণ্যের ভাবনায় আওয়ামী লীগ’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান।

মোস্তফা জব্বার বলেন, ‘রাষ্ট্রের এখন সবচেয়ে বড় ক্ষমতা হচ্ছে রাষ্ট্র ইচ্ছে করলে যে কোনও ওয়েবসাইটকে নিয়ন্ত্রণের ক্ষমতা রাখে। এটি আমাদের একটা বড় অর্জন। বিশেষ করে নির্বাচনের ঠিক আগ মুহূর্তে আমরা এই সক্ষমতা অর্জন করেছি। কারণ সেই সময় কেউ কোনও গুজব ছড়াতে পারে নাই। ইতোমধ্যে ইন্টারনেটকে নিরাপদ করার জন্য ২২ হাজার পর্ণ সাইট বন্ধ করা হয়েছে। এর পাশাপাশি বেটিং সাইটও বন্ধ করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘যে জায়গায় সংকট তা হলো সোশ্যাল মিডিয়াতে যখন স্ট্যাটাস দেয়া হয়, অথবা ভিডিওগুলো প্রচার করা হয়, সেগুলোর ক্ষেত্রে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া সম্ভব হয় না। এর প্রধান কারণ হচ্ছে, ফেসবুক কিংবা ইউটিউব মার্কিন প্রতিষ্ঠান। তারা আমেরিকান কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ড অনুসরণ করে পরিচালনা করে থাকে, তাই আমরা সরাসরি তাদের হস্তক্ষেপ করতে পারি না।’

তিনি আরও বলেন, ‘সুখবর হলো, আমরা আশা করছি সেপ্টেম্বর মাসের পর আমরা এক্ষেত্রেও সরাসরি হস্তক্ষেপ করার ক্ষমতা অর্জন করবো। অর্থাৎ কেউ ইচ্ছা করলেই ফেসবুক-ইউটিউবে যা খুশি তাই প্রচার করতে পারবে না। বিশেষ করে আমাদের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী যেই সক্ষমতা অর্জন করেছে, এটা গর্ব করার বিষয়।’

মন্ত্রী বলেন, ‘কিছু কিছু ক্ষেত্রে মিথ্যা ও গুজব ছড়ায় কিছু অনলাইন নিউজ পোর্টাল। এগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থাগ্রহণে সমস্যা হয়ে যায়। তথ্যমন্ত্রী যদি নিবন্ধন তালিকা শেষ করেন, তাহলে আমরা অনিবন্ধিতগুলো বন্ধ করে দিতে পারবো।’

এসময় তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে সকলকে সর্তকতা থাকার আহ্বান জানান। বলেন, ‘সকলে সর্তক থাকলে বেসিক যে নিরাপত্তার অভাব রয়েছে তা নিশ্চিত হবে।’

প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার শাহ আলী ফরহাদের সঞ্চালনায় সভায় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম, আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন প্রমুখ।

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: