২৭ নভেম্বর, ২০১৮

‘ব্রেক্সিট চুক্তি মার্কিন-যুক্তরাজ্য সম্পর্কের জন্য হুমকিস্বরুপ’



ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র ব্রেক্সিট পরিকল্পনা যুক্তরাষ্ট্র-যুক্তরাজ্য সম্পর্কের জন্য হুমকিস্বরুপ বলে মন্তব্য করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেন, ব্রেক্সিট চুক্তিটি ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) জন্য অসাধারণ মনে হচ্ছে। কিন্তু এই চুক্তির কারণে যুক্তরাজ্য হয়তো যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাণিজ্য করতে পারবে না। খবর বিবিসির।
এদিকে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় অবশ্য জানিয়েছে, ব্রেক্সিটের পরও পুরো বিশ্বের সঙ্গে বাণিজ্য চুক্তি করতে পারবে যুক্তরাজ্য। ডাউনিং স্ট্রিট আরও জানিয়েছে, মে টিভিতে প্রচারিত একটি বিতর্ক অনুষ্ঠানে বিরোধীদল লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিনের সঙ্গে নিজের ব্রেক্সিট পরিকল্পনার পক্ষে লড়তে প্রস্তুত।
স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, আগামী ৯ ডিসেম্বর বিতর্ক অনুষ্ঠানটি হতে পারে। উল্লেখ্য, ১১ ডিসেম্বর মে’র চুক্তি নিয়ে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ভোট অনুষ্ঠিত হবে। মঙ্গলবার (২৭ নভেম্বর) ট্রাম্প সাংবাদিকদের ব্রেক্সিট চুক্তি প্রসঙ্গে বলেন, এই মুহূর্তে চুক্তিটি দেখলে মনে হচ্ছে যুক্তরাজ্য হয়তো আমাদের সঙ্গে আর বাণিজ্য করতে পারবে না। আর সেটা ভাল হবে না। আমার মনে হয় না, তারা সত্যিই এমনটা চেয়েছে।
ট্রাম্পের মন্তব্যের জবাবে ডাউনিং স্ট্রিটের এক মুখপাত্র বলেন, রোববার (২৫ নভেম্বর) চূড়ান্ত হওয়া ব্রেক্সিট চুক্তির আওতায় যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বজুড়ে দেশের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য চুক্তি করতে পারবে যুক্তরাজ্য।
মুখপাত্র আরও বলেন, আমরা ইতিমধ্যেই আমাদের যৌথ দলের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাণিজ্য চুক্তির প্রাথমিক চুক্তি নিয়ে কাজ শুরু করেছি। দলটি ইতিমধ্যে পাঁচবার বৈঠক করেছে।
উল্লেখ্য, সোমবার (২৬ নভেম্বর) হাউজ অফ কমন্সে নিজের ব্রেক্সিট পরিকল্পনা নিয়ে মন্ত্রীদের সমালোচনার জবাব দেন মে। তিনি বলেন, এই চুক্তির ফলে যুক্তরাজ্য আইন, অর্থ ও সীমান্ত বিষয়ে নিয়ন্ত্রণ ফিরে পাবে।

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: