৭ ডিসেম্বর, ২০১৭

‘জেরুজালেম নিয়ে ট্রাম্পের একতরফা স্বীকৃতি গ্রহণযোগ্য নয়’

‘জেরুজালেম নিয়ে ট্রাম্পের একতরফা স্বীকৃতি গ্রহণযোগ্য নয়’



যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসাবে স্বীকৃতির যে ঘোষণা দিয়েছেন, তা বাংলাদেশের কাছেও গ্রহণযোগ্য নয় বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

ফ্রান্স, তুরস্ক, সৌদি আরবসহ অনেক মিত্র দেশের আহ্বান উপেক্ষা করে জেরুজালেমকে এই স্বীকৃতি দেন ট্রাম্প।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্নের উত্তরে এ কথা বলেন। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের বক্তব্য হলো, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যে সুয়োমোটো ঘোষণা দিয়েছেন, তা কারও কাছে, মুসলিম বিশ্বের কাছে কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। কেননা জেরুজালেম প্রশ্নে জাতিসংঘের সিদ্ধান্ত (রেজুলেশন) আছে। জাতিসংঘের সিদ্ধান্ত অনুযায়ীই পদক্ষেপ নেওয়া উচিত। জাতিসংঘের সিদ্ধান্তকে এভাবে অগ্রাহ্য করা কেউই মনে নেবে না।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা মনে করি, ফিলিস্তিনের একটা অধিকার রয়েছে। তাদের একটা নিজস্ব রাষ্ট্রের স্বীকৃতি দিতে হবে। নিজস্ব রাষ্ট্র হতে হবে। ১৯৬৭ সালে ফিলিস্তিনের যে সীমানাটা ছিল, ইস্ট জেরুজালেম যেটা তাদেরই জায়গা, সেটাই থাকা উচিত। এর বিরুদ্ধে একতরফাভাবে কিছু করা মানে সারা বিশ্বে শান্তি নষ্ট করা।’ 

তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র শান্তিপ্রক্রিয়া শুরু করে। এ জন্য নোবেল শান্তি পুরস্কারও পেয়েছিল। এখন সেই শান্তিপ্রক্রিয়াকে অশান্তির পথে ঠেলে দেওয়া হলো। এটা কাম্য নয়। অনুরোধ করব সকল মুসলিম দেশকে এক হতে, মুসলিম উম্মাহকে ঐক্যবদ্ধ হতে। ফিলিস্তিন যেন ন্যায় অধিকার পায়।’

উল্লেখ্য, জেরুজালেম মুসলিম, খ্রিস্টান ও ইহুদি- সব ধর্মের অনুসারীদের কাছেই পবিত্র নগরী। ইসরায়েল বরাবরই জেরুজালেমকে তাদের রাজধানী বলে দাবি করে আসছে। অন্যদিকে পূর্ব জেরুজালেমকে ভবিষ্যৎ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের রাজধানী করতে চান ফিলিস্তিনের নেতারা।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বুধবার হোয়াইট হাউজে এক ভাষণে বলেন, জেরুজালেমকে তিনি ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত দিয়েছেন। সেই সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে স্থানান্তর করতে পররাষ্ট্র দপ্তরকে নির্দেশ দিচ্ছেন।

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: