৫ অক্টোবর, ২০১৭

যশোর টেকনোলজি পার্কে চাকুরী মেলা ৫ অক্টোবর, ৫০০০ চাকুরীর ব্যবস্থা

যশোরে শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে  ৫ অক্টোবর বসছে চাকরি মেলা। মেলায় প্রায় ৩০টি প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান তাদের লোকবল নিয়োগে প্রার্থী বাছাই করবে।
কিন্তু এর জন্য চাকরি প্রার্থীদের কী ধরনের যোগ্যতা প্রয়োজন তা অনেকেই জানেন না। আবার কতোজনকে নিয়োগ করা হবে সেটা নিয়েও একটা ধোঁয়াশা থেকে গেছে।
চাকরি মেলাটি আয়োজন করছে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ। ৫ অক্টোবর সারাদিনব্যাপী মেলাটি অনুষ্ঠিত হবে। আর সেটি উদ্বোধন করবেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।
নবনির্মিত শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক ঘিরে বেশকিছু তরুণই চাকরির সুযোগ পাবেন। এই সংখ্যা কয়েকশ হতে পারে বলে আয়োজকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।
চাকরি পেতে গেলে প্রার্থীকে সেদিন স্বশরীরে মেলায় উপস্থিত হতে হবে। মেলায় অংশ নেওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর স্টলে তাদের কর্মকাণ্ডের নমুনা পাওয়া যাবে। স্টল থকেই জানানো হবে, অংশগ্রহণকারী কোন প্রতিষ্ঠান কোন কাজটি করে। আর সেই কাজের ভিত্তিতেই তারা লোক নিয়োগ করবে।
মেলা উদ্বোধনের পর থেকেই স্টলগুলো প্রার্থীদের  বায়োডাটা সংগ্রহ করবে। সেগুলো বাছাই করার পর আবেদনকারীদের স্পট ভাইভা নেবে প্রতিষ্ঠানগুলো। তারপর তাদের প্রাথমিকভাবে নির্বাচন করা হবে। এরপর প্রতিষ্ঠানগুলো চূড়ান্ত নিয়োগ সম্পন্ন করবে।
আমাদের সার্বক্ষণিক লোকবল নিয়োগ করতে হয়ে। অনেকটা চলমান একটি প্রক্রিয়া হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণ আমাদের কাজ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে কল সেন্টারের সেবা দেওয়া। সেই অনুযায়ী আমরা যতোজনকে ‘যোগ্য’ লোক মনে করবো সবাইকে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানান ফিফো টেকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা তৌহিদ হোসেন।
বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব কল সেন্টার অ্যান্ড আউটসোর্সিং (বাক্য)-এর সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ হোসেন টেকশহরডটকমকে বলেন, আমরা মূলত যোগাযোগ পারদর্শী তরুণ-তরুণীদেরই খুঁজে থাকি। এক্ষেত্রে একাডেমিক যোগ্যতার পাশাপাশি তার বাচনভঙ্গির দিকেই বেশি নজর দিই আমরা। সুন্দর, স্পষ্ট কথা বলা, অন্যের সঙ্গে সুন্দর যোগাযোগ করার ক্ষমতাকে যোগ্যতা হিসেবে ধরি আমরা।
তিনি বলেন, আমাদের বেশিরভাগ কাজই যেহেতু আউটসোর্সিং আর বিদেশী অনেক ক্লায়েন্ট থাকে সেদিকে লক্ষ রেখে ইংরেজির উপর জোর দিই আমরা। সঙ্গে থাকতে হয় কম্পিউটার ব্যবহারের দক্ষতা।
আয়োজকরা জানান, প্রতিষ্ঠানগুলোর কাজ যেহেতু ভিন্ন ভিন্ন, তাই ভিন্ন ভিন্ন দিক লক্ষ রেখেই তারা যোগ্য প্রার্থী খুঁজে নেবে। সেক্ষত্রে ডিপ্লোমা থেকে শুরু করে প্রকৌশলী ও সাধারণরাও চাকরির সুযোগ পাবেন।
যশোর হাইটেক পার্কের প্রকল্প পরিচালক ও তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের যুগ্ম-সচিব জাহাঙ্গীর আলম বলেন, বর্তমানে যশোর শেখ হাসিনা সফটওয়্যায় টেকনোলজি পার্কে ৫ হাজার ব্যক্তির অ্যাকোমোডেশন ব্যবস্থা প্রস্তুত। সেদিক লক্ষ রেখেই বরাদ্দ পাওয়া প্রতিষ্ঠানগুলো চাকরি দেবে। এর পরিমাণ সঠিক বলা সম্ভব হচ্ছে না বলেও জানান তিনি।
জাহাঙ্গীর আলম জানান, তারা সেখানে চাকরি প্রত্যাশীদের জন্য বিভিন্ন সেশন রাখছেন। এর মধ্যে থাকছে সেমিনার, কর্মশালা, প্রতিষ্ঠিত ব্যক্তিদের দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য।
তবে আগ্রহীদের নিজেদের বায়োডাটা সঙ্গে আনার পরামর্শ দেন তিনি। তবে এর সফটকপি যেনো আগ্রহীরা সেখানে সহজেই দিতে পারেন এজন্য পুরো মেলায় ওয়াইফাই থাকবে। একইসঙ্গে সেখানে আয়োজকদের পক্ষ থেকে নেটসহ কম্পিউটার রাখার ব্যবস্থাও করার কথা জানান জাহাঙ্গীর আলম।
যশোরে এটা প্রথম প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর চাকরি মেলা। এই মেলায় প্রযুক্তি ও প্রযুক্তি সম্পর্কিত কাজে চাকরি দিতে প্রায় ৩০ প্রতিষ্ঠান অংশ নিচ্ছে।
মেলায় অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানসমূহের মধ্যে রয়েছে অগ্নি সিস্টেমস লিমিটেড, দোহাটেক নিউ মিডিয়া, অগমেডিক্স বাংলাদেশ লিমিটেড, এমসিসি, অন এয়ার ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড, কাজী আইটি সেন্টার, ফিফোটেক, ই-জেনারেশন লিমিটেড, বাক্য, ডিজিকন টেকনোলজিস, ওয়ালটন কম্পিউটার্স, ব্রিলিয়ান্ট আইডিয়াস লিমিটেড, যশোর আইটি, প্রিনিয়র ল্যাব, এনআরবি জবস, ওয়াটার স্পীড, উৎসব টেকনোলজিস লিমিটেড, সাজ টেলিকম, স্পেকট্রাম ইঞ্জিনিয়ার্স কনসোর্টিয়াম লিমিটেড, স্টেলার ডিজিটাল লিমিটেড, এম্বার আইটি লিমিটেডপ্রভৃতি।
এছাড়াও আয়োজনের বিস্তারিত জানা যাবে এই ঠিকানায়

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: