৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

'দুর্বল কূটনৈতিক তৎপরতার কারণেই রোহিঙ্গা সংকট শোচনীয়'

'দুর্বল কূটনৈতিক তৎপরতার কারণেই রোহিঙ্গা সংকট শোচনীয়'


বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া অভিযোগ করেছেন সরকারের দুর্বল কূটনৈতিক তৎপরতার কারণেই রোহিঙ্গা পরিস্থিতি শোচনীয় রুপ ধারণ করেছে।

বাংলাদেশে আশ্রয় পাওয়া রোহিঙ্গাদের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে নিজ দেশে ফেরত পাঠাতে উদ্যোগ গ্রহণেরও আহ্বান জানিয়েছেন খালেদা জিয়া।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সহিংসতায় অসংখ্য মানুষের নিহত হওয়ার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে শুক্রবার এক বিবৃতিতে এই আহ্বান জানান খালেদা জিয়া।

রোহিঙ্গা নির্যাতনের নিন্দা জানিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, ‘রোহিঙ্গারা বসতবাড়ি, সহায় সম্বল হারিয়ে প্রাণভয়ে দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ার জন্য বাংলাদেশের সীমান্তগুলোতে ভিড় জমাচ্ছে। রাখাইন রাজ্যে গ্রামের পর গ্রামে আগুন জ্বলছে। প্রাণভয়ে রোহিঙ্গারা দিকবিদিক ছুটে বেড়াচ্ছে, গহীন অরণ্যে ঢুকে নিরাপদ আশ্রয়ের সন্ধান করছে। আশ্রয়হীন রোহিঙ্গাদের ওপরও মিয়ানমার সীমান্ত রক্ষীবাহিনী অবিরাম গুলিবর্ষণ করে যে নারকীয় পরিবেশ তৈরি করেছে তা বর্ণনাতীত। এই দৃশ্য অমানবিক, বেদনাদায়ক ও হৃদয়বিদারক।’

তিনি বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি মিয়ানমার সরকার রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। দীর্ঘদিন ধরে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের রোহিঙ্গারা সমাধানহীন একটি অরাজক পরিস্থিতির মধ্যে নিপতিত থাকলে আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা ক্রমাগতভাবে অবনতিশীল হতে থাকবে এবং এতে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে ঐতিহ্যগত স্থিতিশীলতায় বিরুপ প্রভাব ফেলবে।’

মিয়ানমার সরকারকে সতর্ক ও দায়িত্বশীল হয়ে রোহিঙ্গা সংকটের দ্রুত অবসান ঘটানোর আহ্বান জানিয়ে বিএনপি নেত্রী বলেন, ‘শক্তি প্রয়োগের মাধ্যমে যেকোনো সংকট আরো ঘনীভূত হয়।’

পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা পুরুষ-নারী-শিশুদের বাংলাদেশে আশ্রয় এবং তাদের সার্বিক নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: