২৪ আগস্ট, ২০১৭

‘আমাকে নিয়মিত নির্যাতন করতো আমার প্রেমিক’


সিডনিতে বসবাসরত ভারতীয় বংশোদ্ভূত মডেল জেসমিন শোজাই খোলাসা করলেন প্রেমিকের সঙ্গে তার বিষাক্ত আর নিপীড়নমূলক সম্পর্কের কথা। এ বছরই অস্ট্রেলিয়ার সেরা গ্লামার মডেল হয়েছেন তিনি। কিন্তু এই অবস্থানে আসতে লাস্যময়ীকে এক দুঃসহ অতীত কাটাতে হয়েছে।
একটি সংবাদমাধ্যমকে জেসমিন বলেন, আমার প্রেমিকের হিংস্র অতীতের কথা আমাকে জানায় তারই বন্ধুরা। সে প্রচুর মদ্য পান করত। মাতাল হলেউ তার আচরণ ভয়ংকর হয়ে উঠত। যখন তাকে মদ ছেড়ে দেওয়ার জন্য অনুনয় করতাম, তখন আমাকে বলত, একটা রিল্যাক্স করার জন্য তার অ্যালকোহল লাগে। কিন্তু ক্রমেই সে আরো বেশি হিংস্র হয়ে উঠতে থাকল।
জেসমিন এবং তার প্রেমিক একসঙ্গে থাকা শুরু করেছিলেন। বিভিন্ন সময় নিপীড়নমূলক ব্যবহার করত প্রেমিক। এক বিকালে পরিস্থিতি দারুণ খারাপ হয়ে উঠল।
জেসমিন চশমা পরতেন, ওটা ছাড়া কম দেখতেন চোখে। ওই বিকালে প্রেমিক চোখ থেকে আচমকা তার চমশা কেড়ে নিলেন। তারপর জেসমিনকে টেনেহিঁচড়ে বাড়ির দেয়ালে বা টেবিলে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিতে লাগলেন। ভয়ে চিৎকার করতে থাকলেন জেসমিন। প্রতিবেশীরা বুঝতে পেরে পুলিশকে খবর দিলেন। ওই রাতে জেলে থাকতে হয় প্রেমিককে। পরদিন সকালে অনুতাপ নিয়ে বাড়িতে ফেরেন তিনি। জাসমিনকে বুঝিয়ে-শুনিয়ে আবারো আগের মতো থাকা শুরু করলেন।
মনে হচ্ছিল অনুতাপে ভুগছে সে, বলেন জাসমিন। আমি ওকে তখনও ভালোবাসি। কিন্তু তার আচরণ আরো খারাপের দিকে যেতে থাকল। গালিগালাজ আর শারীরিক লাঞ্ছনা প্রথম দিকে কিছুটা কমলেও বাড়তে থাকল।
প্রেমিক আলাদা বিছানায় ঘুমানো শুরু করলেন। তবুও ভয় কাটল না জাসমিনের। এক তীব্র মানসিক যন্ত্রণার মাঝে দিন কাটতে থাকল। মাঝে মধ্যেই চলত নিপীড়ন।
নারীদের এ ধরনের সমস্যায় মনের কথা শোনার পরামর্শ দেন জেসমিন। বলেন, সম্পর্ক ভেঙে ফেলার আগে একটু বিরতি ভালো ফলাফল বয়ে আনতে পারে।
অবশেষে বিচ্ছেদ নিতে হয় জেসমিনকে। এর কয়েক মাস পর থেকেই নিজের ক্যারিয়ার নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। নিয়মিত শুট করছেন। আগে এমনকি কাজ করতেও ভয় লাগত। কিন্তু যখন থেকে ঘরের মধ্যে নির্যাতনের হাত থেকে রেহাই পেলাম, সে দিন থেকেই এগিয়ে যাওয়ার অনুপ্রেরণার অভাব হয়নি। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া 

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: