২৮ এপ্রিল, ২০১৭

প্রধানমন্ত্রীকে ইলিশ দেয়া সেই ব্যবসায়ীকে অপহরণ


প্রধানমন্ত্রীকে ইলিশ দেয়া সেই ব্যবসায়ীকে অপহরণ





ভোলার মনপুরার রামনেওয়াজ ঘাটের মৎস্য ব্যবসায়ী কোরবান আলীকে ঢাকা থেকে দুর্বৃত্তরা অপহরণ করেছে।

বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় ঢাকার গুলিস্থানে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় অফিসের সামনে থেকে বের হওয়ার পর দুর্বৃত্তরা তাকে অপহরণ করে। পরে শুক্রবার মুঠোফোনে দুর্বৃত্তরা পরিবারের কাছে মুক্তিপণ দাবি করে।

অপহৃতের বড় ভাই সদ্য নির্বাচিত ইউপি সদস্য আবদুর রহমান এসব তথ্য জানান।

গত বছর জেলেদের জালে সাড়ে ৩ কেজি ওজনের ইলিশ মাছ ধরা পড়লে রামনেওয়াজ ঘাট মৎস্য ব্যবসায়ী (বর্তমানে অপহৃত) কোরবান আলী রাজা ইলিশ মাছটি ক্রয় করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার পাঠান।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আবদুর রহমান তিনি জানান, সকাল ৯টায় কোরবান আলী নিজের মুঠোফোন থেকে ফোন করে টাকা পাঠাতে বলেন। তা না হলে অপহরণকারীরা তাকে ছাড়বে না বলে জানান। এ পর্যন্ত ৭০ হাজার টাকা পাঠানো হয়েছে। পরে মনপুরা থানায় অভিযোগ করলে পল্টন থানায় অভিযোগ করতে বলা হয়।

মনপুরা থানার ওসি শাহীন খান জানান, মৎস্য ব্যবসায়ী কোরবান আলী ঢাকার পল্টন থেকে অপহৃত হয়েছে বলে তার বড় ভাই থানায় অভিযোগ দিতে আসলে পল্টন থানায় অভিযোগ করার পরামর্শ দেয়া হয়।

জানা যায়, কোরবানসহ তার ভগ্নিপতি জসিম হোটেল খন্দকারে ৪২৪ নম্বর রুমে ছিলেন। বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় আওয়ামী লীগের দলীয় অফিসের সামনে থেকে বের হওয়ার পর মৎস্য ব্যবসায়ী কোরবান আলী ভগ্নিপতি জসিমকে ৫০০ টাকা দিয়ে ভাত খেয়ে হোটেলে চলে যেতে বলেন। তারপর কোরবান আর রাতে ফিরে আসেনি। পরে সকালে ফোন করে বিকাশে টাকা পাঠাতে বলেন।

জসিম মুঠোফোনে জানান, এ পর্যন্ত বিকাশে ৭০-৮০ হাজার টাকা পাঠানো হয়েছে। সর্বশেষ দুপুর ১২টায় (শুক্রবার) কোরবান আলী মুঠোফোনে জানান, ১২ হাজার টাকা বিকাশে দেয়া হলে ওরা ছেড়ে দিবে। পরে বাংলালিংকের ০১৯১৯৯৪৯৯২০ নম্বরে দাবিকৃত ১২ হাজার টাকা দেয়ার চেষ্টা করা হলেও বিকাশ করা যায়নি। পরে সোয়া ১২টায় আরেকটি নম্বর (০১৮২৪৪৪৮৩৩৮) দেন কোরবান। এই নম্বরে টাকা দেয়া হবে বলে জানান তিনি।

দুপুর পৌনে ১টায় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কোরবান আলীর মুক্তি মেলেনি।

সূত্র:যুগান্তর

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: