২৯ মার্চ, ২০১৭

কুমিল্লায় সন্দেহভাজন জঙ্গি আস্তানায় অভিযান শুক্রবার



মৌলভীবাজারের পর এবার কুমিল্লার সদর দক্ষিণ উপজেলার কোটবাড়ী এলাকার বন্ধমতি গ্রামের একটি বাড়ি ‘জঙ্গি আস্তানা’ ঘিরে রেখেছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

আজ বুধবার কুমিল্লা নগরের ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ বাগমারা–সংলগ্ন গন্ধমতি বড় কবরস্থানের পশ্চিম পাশের একটি ভবনে সন্দেহভাজন জঙ্গি আস্তানার খবর পায় পুলিশ। তিনতলা বাড়িটির নিচতলায় সন্দেহভাজন জঙ্গিদের অবস্থান আছে—এমন তথ্যের ভিত্তিতে বিকেল পাঁচটা থেকে বাড়িটি ঘিরে রাখে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। দেলোয়ার হোসেন নামের এক ব্যক্তি ওই বাড়িটির মালিক।

পুলিশ জানিয়েছে, বাড়িটিতে একজন জঙ্গি পাঁচ থেকে ছয়টি শক্তিশালী বোমা ও বিস্ফোরক দ্রব্য নিয়ে অবস্থান করছে। কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতির মধ্যেই এই জঙ্গি আস্তানার খবর পাওয়া গেল।

এদিকে আজ বুধবার রাতে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা বলেছেন, কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন (কুসিক) নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত কোটবাড়ীর 'জঙ্গি আস্তানায়' অভিযান চালাবে না পুলিশ।

তিনি বলেন, 'জঙ্গি আস্তানা ঘিরে ফেলার ঘটনা নির্বাচনে কোনো প্রভাব ফেলবে না। ভোটের আগের দিন জঙ্গিদের অবস্থান শনাক্ত করতে পারায় পুলিশকে ধন্যবাদ জানাতে হবে। কারণ ওই জঙ্গিরা নির্বাচনে প্রভাব ফেলতে পারতো।'

এক প্রশ্নের জবাবে সিইসি বলেন, 'জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালানোর ব্যাপারে আমরা পুলিশকে কোনো ইনস্ট্রাকশন (নির্দেশনা) দেইনি। পুলিশ আমাদেরকে জানিয়েছে, ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার পর সুবিধামতো সময়ে তারা অপারেশন চালাবে।'

কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার মো. শাহ আবিদ হোসেন বলেন, ‘গত মঙ্গলবার রাতে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিট এক জঙ্গিকে চট্টগ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করে। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী কুমিল্লা নগরের দক্ষিণ বাগমারা এলাকার দেলোয়ার হোসেনের বাড়িটি ঘেরাও করে রাখে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। ওই বাড়িতে একজন জঙ্গি আছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, মূল রাস্তা থেকে ২০ গজ পশ্চিমে নির্মাণাধীন তিনতলা একটি ভবন। ভবনটির নিচতলার একপাশে বিজিবির এক সদস্যের পরিবার ভাড়া থাকেন। দ্বিতীয় তলায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মেস করে থাকেন। তৃতীয় তলা নির্মাণাধীন। খবর পেয়ে র‍্যাব-১১–এর অধিনায়ক কামরুল, কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার মো. শাহ আবিদ হোসেন, র‍্যাব-১১ কুমিল্লা কোম্পানির উপপরিচালক মেজর মোস্তফা কায়জারসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিপুলসংখ্যক সদস্য উপস্থিত হয়েছেন।

পুলিশ সুপার মো. শাহ আবিদ হোসেন আরও বলেন, ‘আগামীকাল বৃহস্পতিবার কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচন। তাই এখনই কোনো অভিযান চালানো হবে না। শুক্রবার থেকে অভিযান চালানো হবে। বাড়িটি এখন ঘেরাও করে রাখা হয়েছে। আশপাশের লোকজনকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।’

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: