২২ মার্চ, ২০১৭

শ্রীলঙ্কা বিরুদ্ধে ৩৫৪ তাড়া করে বাংলাদেশের ৩৫২

টেস্ট জয়ের রেশ থাকতে থাকতেই ওয়ানডের প্রস্তুতিতে নেমে পড়া। প্রস্তুতি ম্যাচে বাংলাদেশ অবশ্য জিততে পারেনি। তবে শ্রীলঙ্কা বোর্ড একাদশের ৭ উইকেটে ৩৫৪ রানের জবাবে বাংলাদেশ তুলতে পেরেছে ৮ উইকেটে ৩৫২। জিতলে অবশ্যই ভালো হতো। তবে ২ রানে হারলেও দলের ব্যাটিং অনুশীলন বেশ ভালো হলো। ৩৫ বলে ৫৮ করেছেন অধিনায়ক মাশরাফি। ৭২ করেছেন সাব্বির। মোসাদ্দেক ৫৩। সৌম্য ৪৭।
৭১ রান করে অপরাজিত ছিলেন টেস্ট দল থেকে বাদ পড়া মাহমুদউল্লাহ। মাশরাফির সঙ্গে অষ্টম উইকেটে ১০১ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের কাছেও নিয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু শেষ বলে ৪ রানের সমীকরণ শেষ পর্যন্ত মিলিয়ে দিতে পারেননি।
কলম্বো ক্রিকেট ক্লাব মাঠে টসে জিতে শ্রীলঙ্কা সভাপতি একাদশকে ব্যাট করতে পাঠায় বাংলাদেশ। বীরাক্কোদির ৬৭, কুশল পেরেরার ৬৪, ধনঞ্জয়া ডি সিলভার ৫২ আর থিসারা পেরেরার ৪১ রানে বড় পুঁজি পায় শ্রীলঙ্কা। শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক লঙ্কান দল ইনিংসের শেষ ১০ ওভারে তোলে ৮৫ রান।
বাংলাদেশের বোলারদের জন্য দিনটা ভালো কাটেনি। অধিনায়ক মাশরাফি ৯ ওভারে ৬৬ রানে দিয়ে নিয়েছেন ১টি উইকেট। তাসকিনও একটি উইকেট পেয়েছেন ৬ ওভারে ৫১ রান দিয়ে। উইকেট পেয়েছেন সানজামুল ইসলাম। ৬ ওভার বল করে ২৭ রানে ১ উইকেট তাঁর। একটি করে উইকেট নিয়েছেন আবুল হাসান ও সাইফউদ্দিন।
জবাবে ইনিংসের প্রথম বলে বাংলাদেশ হারায় ইমরুল কায়েসকে। বাংলাদেশের জন্য তা ছিল চাপের। কিন্তু শুরুর ধাক্কা সামলে নেয় বাংলাদেশ। ১১৬ রানের জুটি গড়েন সৌম্য সরকার ও সাব্বির রহমান। তিন নম্বরে ব্যাট করা সাব্বির ৬৩ বলে ৭২ করেছেন ১১টি চার ও এক ছক্কায়। সৌম্যের ৪৩ বলে ৪৭ রানের ইনিংসে আছে ৫টি চার ও ২ ছক্কা।
দলীয় ১১৬ রানে ফেরেন সৌম্য, সাব্বির আউট হন ১২৪ রানের মাথায়। এরপর মুশফিকুর রহিম মোসাদ্দেক হোসেনের সঙ্গে আরও ২৮ রান যোগ করেন। ব্যক্তিগত ২০ রানে মুশফিক ফেরেন। বাংলাদেশের স্কোর তখন ৪ উইকেটে ১৫২। মোসাদ্দেক টেনে নিচ্ছিলেন ৫০ বলে ৫৩ করে। ৪টি চার ও ২ ছক্কা মেরেছেন গত টেস্টের অন্যতম নায়ক এই তরুণ। মোসাদ্দেক ফেরার ২১ রানের মধ্যে শুভাগত (২) ও সানজামুল (৬) আউট হলে বিপদেই পড়ে বাংলাদেশ।
তখনই মাশরাফির পাল্টা ঝড় তোলা শুরু। অন্য প্রান্তে মাহমুদউল্লাহ মূলত সঙ্গ দিচ্ছিলেন। এক-দুই রান করে সচল রেখেছিলেন ইনিংসের চাকা। শেষ ২ ওভারে ১৬ রান লাগে—সমীকরণ কঠিন কিছু ছিল না। কিন্তু ৪৯তম ওভারে ৪ রান তোলার পাশাপাশি মাশরাফিকেও হারিয়ে ফেলে বাংলাদেশ। মাশরাফির ইনিংসে আছে ৪টি করে চার ও ছক্কা।
শেষ ওভারে ১২ রানের জায়গায় মাহমুদউল্লাহ তুলতে পারলেন ১০। পঞ্চম বলে চার মেরেছিলেন। কিন্তু ষষ্ঠ বলে চার মারতে পারলেন না। নিলেন ১ রান।
এই ম্যাচে সাকিব-মোস্তাফিজ খেলেননি। তামিমও ছিলেন না। ২৫ মার্চ তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডে।
সংক্ষিপ্ত স্কোর :
শ্রীলঙ্কা বোর্ড সভাপতি একাদশ : ৫০ ওভারে ৩৫৪/৭ (বিরাক্কোডি ৬৭, কুশল পেরেরা ৬৭, ধনঞ্জয়া ৫২; সানজামুল ১/২৭, আবুল হাসান ১/৩৫, মাশরাফি ১/৬৬, তাসকিন ১/৫১)
বাংলাদেশ: ওভারে (ইমরুল ০, সৌম্য ৪৭, সাব্বির ৭২, মুশফিকুর ২০, মোসাদ্দেক ৫৩, মাহমুদউল্লাহ ৭১*, শুভাগত ২, সানজামুল ৫, মাশরাফি ৫৮*; চতুরাঙ্গা ২/৫৩, আকিলা দনঞ্জয়া ৩/৬১, মদুশঙ্কা ১/৩৯)।
ফল: শ্রীলঙ্কা একাদশ ২ রানে জয়ী।

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: