৩ মার্চ, ২০১৭

সৌদির কাছে দ্বীপ বিক্রি করছে মালদ্বীপ

সৌদি আরবের কাছে একটি দ্বীপ বিক্রি করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মালদ্বীপের আবদুল্লাহ ইয়ামিন সরকার। আর এতে নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগে পড়েছে ভারত। প্রতিবেশি দেশের একটি দ্বীপ সৌদি আরবের নিয়ন্ত্রণে চলে গেলে তাতে ভারতের নিরাপত্তা চ্যালেঞ্জে পড়বে বলে মনে করছে দেশটির সরকার।
ভারতীয় গণমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সম্প্রতি মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়েমিন তাদের ‘ফাফু’ নামের একটি প্রবাল দ্বীপ সৌদি আরবের কাছে বিক্রি করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দ্বীপটি মালদ্বীপের ২৬টি দ্বীপের একটি।
ফাফু দ্বীপের নিয়ন্ত্রণ সৌদি আরবের হাতে চলে গেলে মালয়েশিয়ায় ওয়াহাবি মতবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে মালদ্বীপের বিরোধী দল মালদ্বীভিয়ান ডেমোক্রেটিক পার্টি (এমডিপি)। ইতিমধ্যে সিরিয়ার বিদেশী যোদ্ধাদের একটি বড় অংশ ওইসব দ্বীপে বসবাস করছে বলেও জানিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।
এদিকে শিগগিরই মালদ্বীপ সফরে আসছেন সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ। ধারণা করা হচ্ছে, এই সফরে দ্বীপ হস্তান্তর বিষয়ে কথা বলবেন তিনি।
এমডিপি সদস্য এবং মালদ্বীপের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আহমেদ নাসিম জানান- তার আশা, এ ব্যাপারে তার দেশের সরকার জনগণের ইচ্ছা-অনিচ্ছার মূল্য দেবে। তিনি বলেন, ‘পূর্বে মালদ্বীপের কোনো ভূখণ্ড বিদেশীদের কাছে বিক্রি করাকে রাষ্ট্রদ্রোহিতা মনে করা হতো। এর শাস্তি ছিল মৃত্যুদণ্ড।’
২০১৫ সালে আবদুল্লাহ ইয়ামিন সরকার সংবিধান সংশোধন করে বিদেশীদের কাছে মালদ্বীপের ভূখণ্ড বিক্রির বৈধতা দেয়। এখন পর্যন্ত মালদ্বীপই ভারতের একমাত্র প্রতিবেশি দেশ, যেখানে নরেন্দ্র মোদি কোনো সফর করেননি। মালদ্বীপের আভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপে আগ্রহী নয় ভারত। তবে দেশটির আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে কোনো একটি পক্ষ নিতে পারে মোদি সরকার।
বর্তমানে লন্ডনে নির্বাসিত জীবনযাপন করছেন মালদ্বীপের প্রধান বিরোধী দল এডিপি প্রধান ও সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদ। আগামী বছরের নির্বাচনে তিনি অংশ নেবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: