৬ জানু, ২০১৭

ইসলামী ব্যাংকে বড় পরিবর্তন

ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ পুনর্গঠন করা হয়েছে। পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মোস্তফা আনোয়ারকে সরিয়ে নতুন চেয়ারম্যান করা হয়েছে সাবেক সচিব আরাস্তু খানকে। পদত্যাগ করেছেন ব্যাংকের এমডি মোহাম্মদ আবদুল মান্নান। নতুন এমডির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ইউনিয়ন ব্যাংকের বর্তমান এমডি মো. আবদুল হামিদ মিঞাকে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সভায় ব্যাপক এ রদবদল করা হয়।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, জামায়াত নেতাদের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান ইবনে সিনার প্রতিনিধি হিসেবে ব্যাংকটির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছিলেন মুস্তাফা আনোয়ার। তিনি ব্যাংকের পরিচালক পদ থেকেও পদত্যাগ করেছেন। পাশাপাশি ব্যাংকটির ফাউন্ডেশন পদ থেকেও পদত্যাগ করেছেন মুস্তাফা আনোয়ার। সভায় ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে সৌদি আরবের আল-রাজী ব্যাংকের প্রতিনিধি ইউসুফ আবদুল্লাহ আল-রাজী পুনঃনির্বাচিত হয়েছেন। আরেক ভাইস চেয়ারম্যান এম আযীজুল হক পদত্যাগ করেছেন। তার জায়গায় নতুন করে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সৈয়দ আহসানুল আলমকে। এর আগে তিনি নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।
নতুন করে নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়েছে প্যারাডাইস ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের প্রতিনিধি মেজর জেনারেল (অব.) ইঞ্জিনিয়ার আবদুল মতিনকে। ব্যাংকের অডিট কমিটির চেয়ারম্যান পদে দায়িত্ব পালনকারী হেলাল আহমেদ চৌধুরীকে সরিয়ে বিডিবিএলের সাবেক এমডি ড. মো. জিল্লুর রহমানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। পাসপোর্ট অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক মো. আবদুল মাবুদ পিপিএমকে ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান পদে বহাল রাখা হয়েছে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে গতকাল রাতে আরাস্তু খান বলেন, ব্যবস্থাপনা পরিচালককে অপসারণ করা হয়নি, তিনি স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেছেন। চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নেওয়া সম্পর্কে জানতে চাইলে কৌশলে এড়িয়ে গিয়ে তিনি বলেন, ‘পরে জানতে পারবেন।’
মুস্তাফা আনোয়ার বলেন, পর্ষদের সভায় ব্যাংকের নতুন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। ভাইস চেয়ারম্যান আযীজুল হক ও এমডি আবদুল মান্নান পদত্যাগ করেছেন। সবকিছু শান্তিপূর্ণভাবে হয়েছে বলে তিনি জানান।
আরাস্তু খান এর আগে বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংক লিমিটেডের চেয়ারম্যান ছিলেন। তিনি সম্প্রতি আরমাডা স্পিনিং মিলস লিমিটেডের প্রতিনিধি হিসেবে ইসলামী ব্যাংকের পরিচালক হন। ১৯৫৬ সালে মানিকগঞ্জ জেলার গরপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। আরাস্তু খান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএসএস ডিগ্রি এবং যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লোকপ্রশাসনে মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন। ব্যাংকের নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে নিয়োগ পাওয়া মো. আবদুল হামিদ মিঞা ইউনিয়ন ব্যাংকের আগে এক সময় রাষ্ট্রীয় খাতের রূপালী ব্যাংকের এমডি ছিলেন। ব্যাংক কোম্পানি আইন অনুযায়ী, এখন নতুন এমডির ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অনাপত্তি নিতে হবে।
এ বিষয়ে গতকাল রাত পৌনে ৯টায় বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এসকে সুর চৌধুরীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ইসলামী ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ পুনর্গঠন বা এমডির পদত্যাগ বিষয়ে তিনি এখনও কিছু জানেন না।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ব্যাংকটিতে যুদ্ধাপরাধের দায়ে দণ্ডিত জামায়াতে ইসলামীর ব্যাপক প্রভাব ছিল বরাবরই। যুদ্ধাপরাধের দায়ে দণ্ডিত মীর কাসেম আলীসহ জামায়াতের ঘনিষ্ঠজনরা বিভিন্ন সময়ে এ ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদে গুরুত্বপূর্ণ পদে ছিলেন। গণজাগরণ মঞ্চ গঠনের পর ইসলামী ব্যাংককে জামায়াতের প্রতিষ্ঠান হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। সেই থেকে ব্যাংকটি নানান টানাপড়েনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। ব্যাংকটির মাধ্যমে জঙ্গি অর্থায়নের অভিযোগ ওঠার পর বাংলাদেশ ব্যাংক বহু আগে থেকেই ইসলামী ব্যাংক পর্ষদে একজন পর্যবেক্ষক নিয়োগ দিয়ে রেখেছে।
১৯৮৩ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে ব্যাংকটির বড় অংশের শেয়ারের মালিক বিদেশি উদ্যোক্তারা। তবে সাম্প্রতিক সময়ে বিদেশি অনেক প্রতিষ্ঠান তাদের শেয়ার বিক্রি করে দিয়েছে। এতে করে দেশীয় অনেক প্রতিষ্ঠান শেয়ার কেনার সুযোগ পেয়েছে। যার পরিপ্রেক্ষিতে পরিচালনা পর্ষদে নতুন অনেকেই যুক্ত হওয়ার সুযোগ পেয়েছেন। আবার স্বতন্ত্র পরিচালক হিসেবে অনেককে পর্ষদে যুক্ত করেছে ব্যাংক। ব্যাংকটির ১৮ সদস্যের পর্ষদের ৮ জনই বর্তমানে স্বতন্ত্র পরিচালক। স্বতন্ত্র পরিচালকদের বেশিরভাগই সরকারের আস্থাভাজন হিসেবে পরিচিত। পরিচালনা পর্ষদে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে বর্তমানে তারাই বেশি ভূমিকা রেখেছেন বলে জানা গেছে।
ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে ২০১০ সাল থেকে দায়িত্ব পালন করেছেন মোহাম্মদ আবদুল মান্নান। এর আগে একই ব্যাংকের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। চলতি বছর তার মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা।
ব্যাংকের ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, শেয়ারহোল্ডারদের মধ্যে পরিচালনা পর্ষদে আছেন ইসলামিক ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক, সৌদি আরবের আল-রাজী ব্যাংক, দেশের ইবনে সিনা ও সরকারি খাতের ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশের প্রতিনিধি। এ ছাড়া সাম্প্রতিক সময়ে এবিসি ভেঞ্জার, গ্রান্ড বিজনেস লিমিটেড, এক্সেল ডাইং অ্যান্ড প্রিন্টিং, প্লাটিনাম এনডেভরস, প্যারাডাইস ইন্টারন্যাশনাল ও ব্লু ইন্টারন্যাশনালের প্রতিনিধি ব্যাংকটির পরিচালনা পর্ষদে যুক্ত হয়েছেন।

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: