১৮ জানু, ২০১৭

ট্রাম্পের ক্ষমতা গ্রহণ: যেমন হবে তিনদিনের শপথ অনুষ্ঠান


মার্কিন  প্রেসিডেন্টের এবারের ক্ষমতা গ্রহণের অনুষ্ঠান বিভিন্ন কারণে ভিন্ন। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে নারী বিদ্বেষী, মুসলিম বিদ্বেষী বক্তব্য, যৌন হয়রানি ও ধর্ষণসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। মার্কিন ইতিহাসের সবথেকে বিতর্কিত প্রেসিডেন্ট হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন তিনি। সেই সঙ্গে ওবামা প্রশাসন ও মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার পক্ষ থেকে রাশিয়ার বিরুদ্ধে ট্রাম্পকে জেতাতে নির্বাচনে হস্তক্ষেপের অভিযোগ, এবারের ক্ষমতা গ্রহণ অনুষ্ঠানে এক ভিন্নতা নিয়ে এসেছে। ২০ জানুয়ারি পরবর্তী মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ক্ষমতা গ্রহণ করতে যাচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে এই ক্ষমতা গ্রহণের আনুষ্ঠানিকতা কিন্তু একদিন আগে থেকেই শুরু হয়ে যাবে। এই আনুষ্ঠানিকতা চলবে ক্ষমতা গ্রহণের পরদিন পর্যন্ত।সময়সহ অনুষ্ঠানসূচী তুলে ধরা হলো –
বৃহস্পতিবার, ১৯ জানুয়ারি
বিকাল ৩টা – পুষ্পস্তবক অর্পণ
জাতীয় বীরদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে আরলিংটন ন্যাশনাল সিমেট্রিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন ট্রাম্প। আর এর মাধ্যমেই ক্ষমতা গ্রহণের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে।
বিকাল ৪টা – ‘মেক আমেরিকা গ্রেট অ্যাগেইন’ স্বাগত অনুষ্ঠান
লিঙ্কন মেমোরিয়ালের বাইরে আয়োজিত কনসার্টে ট্রাম্প একটি সংক্ষিপ্ত স্বাগত বক্তব্য রাখবেন। কনসার্টটি যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেল সরাসরি সম্প্রচার করবে। ওই অনুষ্ঠানে টোবি কিথ, থ্রি ডোরস ডাউনসহ আরও অনেক শিল্পীরাই অংশগ্রহণ করবেন।
সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা – ক্যান্ডেললাইট ডিনার
ট্রাম্প, মাইক পেন্স এবং তাদের পরিবার ওয়াশিংটনের ইউনিয়ন স্টেশনে নির্বাচনে তাদের পৃষ্ঠপোষকদের ধন্যবাদ জানিয়ে সেখানে ক্যান্ডেললাইট ডিনার সারবেন।
শুক্রবার, ২০ জানুয়ারি
প্রার্থনার মধ্য দিয়ে শুরু হবে ক্ষমতা গ্রহণের দিনটি। যা সম্ভবত রাজধানীতে নতুন প্রেসিডেন্টের নাচের তালে শেষ হবে।
ভোর – ব্যক্তিগত পারিবারিক নাস্তা
মার্কিন প্রেসিডেন্টের অতিথিশালা ব্লেয়ার হাউসে ট্রাম্প পরিবার ও তাদের আমন্ত্রিত অতিথিরা পারিবারিক নাস্তা সারবেন। বৃহস্পতিবার রাতে তারা ওই অতিথিশালায় থাকবেন বলে ধারণা করা হয়।
সাড়ে ৮টা – ব্যক্তিগত প্রার্থনা
ব্লেয়ার হাউসের অদূরে সেইন্ট জন’স এপিসকোপাল চার্চ-এ প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত ট্রাম্প ও তার পরিবার প্রার্থনায় অংশ নেবেন।
সাড়ে ৯টা – প্রেসিডেন্টের সঙ্গে কফি
বিদায়ী ও ক্ষমতায় আসতে যাওয়া দুই প্রেসিডেন্ট নিজেদের স্ত্রীদের নিয়ে হোয়াইট হাউসে একসঙ্গে কফি পান করবেন। এরপর ট্রাম্প ও ওবামা পেনসিলভ্যানিয়া এভিনিউতে ঘুরতে যাবেন।
সাড়ে ১১টা – শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান
মার্কিন কর্মকর্তা ও অন্যান্য বিশেষ ব্যক্তিরা শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন। ধর্মীয় নেতারা ট্রাম্পকে শপথ গ্রহণ করাবেন। কংগ্রেস উদ্বোধনী কমিটির চেয়ারম্যান মিসৌরির সিনেটর রয় ব্লান্ট বিশেষ বক্তব্য রাখবেন। সেই সঙ্গে থাকবে সংগীতানুষ্ঠান।
দুপুর ১২টা – দফতরের শপথ ও প্রেসিডেন্টের ভাষণ
প্রধান বিচারপতি জন জি. রবার্টস ট্রাম্পকে শপথবাক্য পাঠ করাবেন। তখন ট্রাম্পের হাতে ধরা থাকবে ছোটকাল থেকে নিজের কাছে রাখা বাইবেল এবং লিঙ্কনের বাইবেন। শপথ গ্রহণ শেষে প্রেসিডেন্ট হিসেবে প্রথমবারের মতো ভাষণ দেবেন ট্রাম্প।
ট্রাম্পের শপথ গ্রহণের পর ওবামা পরিবার হোয়াইট হাউস ত্যাগ করবে।
বিকেলের প্রারম্ভে নতুন প্রেসিডেন্ট, তার সরকারি কর্মকর্তা ও বন্ধুরা ক্যাপিটল রটুন্ডায় দুপুরের ভোজ গ্রহণ করবেন এবং সংগীতানুষ্ঠান উপভোগ করবেন।
দুপুরের খাবারের পর – সশস্ত্র বাহিনীর পর্যালোচনা
ক্যাপিটলের ইস্ট ফ্রন্ট থেকে ট্রাম্প সশস্ত্র বাহিনীকে পর্যালোচনা করবেন।
শেষ বিকেলে – উদ্বোধনী কুচকাওয়াচ
ট্রাম্প এবং পেন্স পেনসিলভ্যানিয়া এভিনিউতে ওই কুচকাওয়াচে কয়েক হাজার সামরিক কর্মকর্তাকে সামনে দাঁড়িয়ে নেতৃত্ব দেবেন। হোয়াইট হাউসে পৌঁছানোর পর ট্রাম্প কুচকাওয়াচের বাকি অংশ সেখানে দাঁড়িয়েই পর্যবেক্ষণ করবেন।
সন্ধ্যা ৭টা – উদ্বোধনী নাচের অনুষ্ঠান (Inaugural balls)
ওয়াল্টার ই. ওয়াশিংটন কনভেনশন সেন্টারের দু’টি পৃথক তলায় ট্রাম্প আনুষ্ঠানিক বক্তব্য রাখবেন। ন্যাশনাল বিল্ডিং মিউজিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে সশস্ত্র বাহিনীর একটি অনুষ্ঠান। ধারণা করা হচ্ছে, ট্রাম্প তিনটি অনুষ্ঠানেই বক্তব্য রাখার পর নাচে অংশ নেবেন।
শনিবার, ২১ জানুয়ারি
ট্রাম্পের ক্ষমতা গ্রহণ অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিক ইতি ঘটবে শনিবার সকালে। তবে সমবেত লোকজন দিনভরই তাদের মতামত জানাবেন।
সকাল ১০টা – জাতীয় প্রার্থনা
ওয়াশিংটন ন্যাশনাল ক্যাথেড্রালে চিরাচরিত প্রার্থনায় অংশ নেবেন ট্রাম্প ও পেন্স। এর মধ্য দিয়েই ট্রাম্পের ক্ষমতা গ্রহণের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘটবে।

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: