১২ ডিসেম্বর, ২০১৬

দৃশ্যমান হচ্ছে স্বপ্নের সেতু

দৃশ্যমান হচ্ছে স্বপ্নের সেতু


দূর থেকে মনে হয়, হলদে সোনালি রঙের আয়তাকার বড়সড় একটি বাক্স পড়ে আছে পদ্মা নদীর তীরে। কাছে গেলে বোঝা যায়, আসলে সেটি কত বিশাল। কাগজপত্রে এর নাম 'স্টিল ট্রাস'। যা দৈর্ঘ্যে ফুটবল মাঠের চেয়েও বড়, ১৫০ মিটার। আর উচ্চতা প্রায় ৪০ ফুট। এটি চারতলা ভবনের সমান। প্রস্থে তা আরও বেশি। আসলে এই 'লোহার বাক্স'ই স্বপ্নের বাক্স! কারণ এটিই যে পদ্মা সেতুর প্রথম স্প্যান। নদীর বুকে পোঁতা পিলারগুলোর ওপর এমন ৪১টি স্প্যানকে ঘিরেই দেখা দেবে মূল সেতুটি। এসব 'বাক্সের' ভেতর দিয়ে চলবে ট্রেন আর ওপরে বসানো কংক্রিটের সড়কে চলবে গাড়ি। নির্মাণসংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা আশা করছেন, আগামী মাস থেকে এসব স্প্যান স্থাপনের কাজ শুরু করা যাবে।

গত বছরের ১২ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতুর মূল অবকাঠামো নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেন। নিজস্ব অর্থায়নে সেতু তৈরির সম্ভাবনা বাস্তব হয়ে ওঠায় দেশজুড়ে সৃষ্টি হয় বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা। গত এক বছরে সেতুর কাজ কতটা এগিয়েছে, তা দেখতেই গত শনিবার মাওয়া-জাজিরা যাওয়া।

গত বছরের ১১ ডিসেম্বর পদ্মা সেতু প্রকল্পের কাজ হয় প্রায় ২৭ শতাংশ। চলতি বছরের ১০ ডিসেম্বর পর্যন্ত কাজ হয়েছে প্রায় ৪০ শতাংশ। ৩৬৫ দিনে প্রকল্পের মোট কাজের ১৩ শতাংশ শেষ হয়েছে। ব্যাপক অগ্রগতি হয়েছে মূল সেতুর কাজে। গত বছরের ১১ ডিসেম্বর মূল সেতুর ১৭ দশমিক ৩ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছিল। চলতি বছরের একই দিন পর্যন্ত কাজ সম্পন্ন হয়েছে ৩৭ দশমিক ১৭ শতাংশ। অর্জিত হয়েছে লক্ষ্যমাত্রার প্রায় ৯৫ শতাংশ।

গত শুক্রবার সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ পরিদর্শন করার পর জানান, সেতু প্রকল্পের প্রায় ৪০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। একটি স্প্যান পুরোপুরি তৈরি হয়েছে। আগামী মাসে তা স্থাপন করা হবে। আরও দুটি স্প্যান জোড়া দেওয়ার কাজ চলছে। একটি এসে পৌঁছেছে চট্টগ্রাম বন্দরে।

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: