২৮ ডিসেম্বর, ২০১৬

অস্ট্রেলিয়ায় ভয়াবহ বন্যার সৃষ্টি


অস্ট্রেলিয়ায় প্রবল বৃষ্টিতে শুষ্ক পর্বতমালা উলুরুজুড়ে প্রচুর জলপ্রপাতের সৃষ্টি হয়েছে। দেশটির মধ্যাঞ্চলে রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টিতে বন্যা দেখা দিয়েছে। এতে ছয়জন নিখোঁজ হয়েছে। পরে নিরাপদে তাদের উদ্ধারও করা হয়েছে।
প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে বিখ্যাত উলুরুকাটা জুটা ন্যাশনাল পার্ক সাময়িক বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। যে ছয়জন নিখোঁজ হয়েছিল তাদের মধ্যে একটি শিশুও ছিল। বড়দিনের পর থেকে এদের কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না।
বড়দিনের সময় থেকেই দেশটিতে ঝড়ের পাশাপাশি মুষলধারায় বৃষ্টিপাত শুরু হয়। ঝড়বৃষ্টিতে শুষ্ক ওই অঞ্চলটিতে আকস্মিক বন্যা দেখা দিয়েছে।  অঞ্চলটি সাধারণত শুষ্ক থাকে। ভারী বর্ষণে শুষ্ক মাটি কাদায় পরিণত হয়েছে।
এ ধরনের ভারী বৃষ্টিপাত শতাব্দিতে দুইবার হতে পারে বলে জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার আবহাওয়া ব্যুরো (বিওএম)।
বৃষ্টিপাতের ফলে শুষ্ক পর্বতমালা উলুরু জুড়ে প্রচুর জলপ্রপাতের সৃষ্টি হয়েছে। নর্দান টেরিটরি ও পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার ওই এলাকাগুলো বন্যার পানিতে ডুবে যাওয়ায় নিখোঁজ পরিবারটির খোঁজে পুলিশকে হেলিকপ্টার ব্যবহার করতে হয়েছে।
ছয়জনের চারজনকে মঙ্গলবার এবং দুজনকে বুধবার উদ্ধার করা হয়। ওই এলাকায় মোবাইল ফোনেরও কোনো নেটওয়ার্ক নেই। পরিবারটি একটি দলের সঙ্গে পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার প্রত্যন্ত এলাকা কিওয়াকারা থেকে নর্দান টেরিটরির কিনতোরে যাচ্ছিল। দলটি গন্তব্যে পৌঁছাতে ব্যর্থ হয়ে ফিরে আসে। বন্যার কবলে পড়ে পরিবারটি পরস্পর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে নিখোঁজ হয়ে যায়।
সোমবার কিনতোরে ২৩২ মিলিমিটারেরও বেশি বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। ডিসেম্বরে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাতের আগের যে রেকর্ড ছিল এ পরিমাণ তার দ্বিগুণ। বন্যার কারণে ওই এলাকার বহু পরিবারকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।
নর্দান টেরিটরির পুলিশ জানিয়েছে, পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার সীমান্তের নিকটবর্তী কিনতোরে বন্যায় ২৫টিরও বেশি বাড়ি ডুবে গেছে।
ওই এলাকার প্রধান শহর অ্যালিস স্প্রিং থেকে ২৫০ কিলোমিটার দূরের শহর পাপুনিয়া পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।
উলুর পর্বতমালার নিকটবর্তী টাউন উলারা পুরোপুরি ডুবে গেছে। অ্যালিস স্প্রিংয়ের কাছে একটি সড়কে বন্যার পানির তোড়ে একটি গাড়ি তিন আরোহীসহ ভেসে গিয়েছিল। পরে ওই আরোহীদের উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
অস্ট্রেলিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বন্যা কবলিত শহরগুলো থেকে অধিবাসীদের সরিয়ে নেয়া হয়েছে। শহরগুলোর প্রায় ৩শ’টি রাস্তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। বন্যায় ডুবে যাবার পর থিয়োডোর শহর থেকে প্রায় ৩শ’ পরিবারকে হেলিকপ্টারে করে অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হয়। বন্যায় কয়েকশ মিলিয়ন ডলারের সূর্যমুখী ও তুলা শস্যের ক্ষতি হয়েছে।
কুইন্সল্যান্ডের বেশ কয়েকটি এলাকাকে দুর্যোগপূর্ণ বলে ঘোষণা করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। রাজধানী ব্রিসবেন ১৫০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যায় আক্রান্ত হয়েছে এবার।
কুইন্সল্যান্ডের জরুরি ব্যবস্থাপনা বিভাগের মুখপাত্র ব্রুস ও’গ্র্যাডি অস্ট্রেলিয়ান টিভি চ্যানেল এবিসিকে জানান, থিয়োডোরের নদীর পানি অতীতের সকল রেকর্ড ভেঙ্গে ৫০ সেন্টিমিটার উচ্চতায় উঠে গেছে। এই উচ্চতা আরও বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
চিনচিলা, ড্যালবিসহ অভ্যন্তরীণ শহরগুলি পুরোপুরি ডুবে গেছে।  এমারল্যান্ড এর পশ্চিমাঞ্চলীয় আলফা এবং জেরিকো শহরকেও দুর্যোগপূর্ণ বলে ঘোষণা করা হয়েছে।
ওয়েস্টার্ন ডাউনের মেয়র রে ব্রাউন বলেন, এখনও প্রচুর পরিমাণে নদীর পানি শহরে আসছে এবং এটাই সমস্যা। আমরা জানি না সামনে কি পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হবে।
কৃষক লবি গ্রুপ এগফোর্সের প্রেসিডেন্ট ব্রেন্ট ফিনলে বলেন, বন্যায় প্রায় ৪০ কোটি ৩০ লাখ ডলারের শস্য নষ্ট হবার সম্ভাবনা রয়েছে।
তবে নিউ সাউথ ওয়েলসের প্রায় ১৭৫ বাসিন্দা আশ্রয়কেন্দ্রে রাত কাটাবার পর বাড়ি ফিরে এসেছে।
কিন্তু আরবানভিল এবং বোনালবোর প্রায় ৮শ’ অধিবাসীকে আরও ২৪ ঘণ্টা আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান করতে হতে পারে। সূত্রঃ বার্তা সংস্থা এএফপি


SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: