৩১ ডিসেম্বর, ২০১৬

খুলনায় আ.লীগ নেতাকে লক্ষ্য করা গুলিতে নারী পথচারী নিহত

খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং সাবেক কাউন্সিলর জেড এ মাহমুদ ডনকে লক্ষ্য করে গুলি করেছে সন্ত্রাসীরা। তবে গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে শিপ্রা কুণ্ডু নামে এক নারী পথচারী নিহত হয়েছেন।
শনিবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে মহানগরীর দোলখোলার মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শিপ্রা কুণ্ডু ব্যাংক কর্মকর্তা চিত্তরঞ্জন কুণ্ডের স্ত্রী। তিনি পূজার ফুল কিনতে দোলখোলায় গিয়েছিলেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সামসুর রহমান মানিওয়েল ফেয়ার সেন্টারে কাজ শেষ করে জেড এ মাহমুদ ডন বের হলেই 
তিনটি মোটরসাইকেল যোগে ৯ জন দুর্বৃত্ত তাকে লক্ষ্য করে দুই রাউন্ড গুলি ছোড়ে। এ সময় জনৈক ব্যক্তি ডনকে ধাক্কা দিলে গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে শিপ্রার বুকে লাগে। পরে তাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের চিকিৎসক এস এম মনোয়ারুল ইসলাম শিপ্রা কুণ্ডুকে মৃত ঘোষণা করেন।
এদিকে, হামলার পর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে খুলনা প্রেসক্লাবে এসে সমাবেশ করেছে। সমাবেশে বক্তব্য দেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান এমপি, হাফেজ মো. শামীম।
ঘটনার বিবরণ দিয়ে জেড এ মাহমুদ ডন বলেন, সামসুর রহমান মানিওয়েল ফেয়ার সেন্টারে একটি কাজ শেষ করে তার একটু সামনে গিয়ে পরিচিত এক লোকের সঙ্গে কথা বলছিলাম। এসময় মৌলভীপাড়ার দিক থেকে আসা দুটি মোটরসাইকেলে মুখোশধারীরা আমাকে লক্ষ্য করে গুলি করে। আমার সঙ্গে থাকা লোকটি আমাকে ধাক্কা দিয়ে পাশের ওয়ালের ওপর ফেলে দেয়। এতে গুলি আমার গায়ে না লেগে পাশের এক পথচারী নারীর গায়ে লাগে। আমি পরে পাশের একটি বাড়িতে আশ্রয় নিই। মুখোশধারী সন্ত্রাসীরা ফাঁকা গুলি করতে করতে শীতলাবাড়ির মন্দিরের দিক দিয়ে চলে যায় বলে তিনি জানান।
কারা গুলি করেছে জানতে চাইলে ডন বলেন, এলাকার চিহ্নিত মাদক ও অস্ত্র ব্যবসায়ীরা এ কাজ করেছে বলে ধারণা করছি। তবে মুখোশ পরে থাকায় কাউকে চিনতে পারিনি।ঘটনাস্থলে থাকা খুলনা সদর থানা পুলিশের এএসআই পুলক জানান, ঘটনার পর হামলার স্থান থেকে দুইটি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।
খুলনা সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনাটি জানার পর পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে এসেছেন। সন্ত্রাসীদের আটকের চেষ্টা চলছে।

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: