৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

অনুমোদন পেল দেশের ইতিহাসে ব্যয়বহুল প্রকল্প

অনুমোদন পেল দেশের ইতিহাসে ব্যয়বহুল প্রকল্প




অনুমোদন পেল বহুল আলোচিত রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্প। এটি দেশের ইতিহাসে এ যাবতকালের সবচেয়ে ব্যয়বহুল প্রকল্প। এ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ১ লাখ ১৩ হাজার ৯৩ কোটি টাকা। মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রকল্পটির অনুমোদন দেওয়া হয়। রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা। একনেক সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল একনেক সভার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। তিনি বলেন, ইতিহাসে এই প্রথম এতো বড় প্রকল্প অনুমোদন হলো। এটা বাংলাদেশের জন্য একটা বিরাট ব্যাপার। তিনি বলেন, ১ লাখ ৫২ হাজার ৭১২ কোটি টাকার মোট ১২টি প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে, যা চলতি অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) বরাদ্দের চেয়ে বড়। চলতি বছরে ১ লাখ ২৩ হাজার কোটি টাকার এডিপি বাস্তবায়নের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। মুস্তফা কামাল বলেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে ভিভিইআর-১২০০ (এইএস-২০০৬) রিঅ্যাক্টরের দুটি বিদ্যুৎ ইউনিটের (ইউনিট-১ ও ২) সমন্বয়ে ২ হাজার ৪০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতার পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করা হবে। সেই সঙ্গে এটি পরিচালনার জন্য বিভিন্ন ধরনের ভৌত অবকাঠামো তৈরি, বিদ্যুৎকেন্দ্র পরিচালনার জন্য পরমাণু প্রযুক্তি সংক্রান্ত বিষয়ে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে যোগ্য ও দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তোলা এবং কার্বনমুক্ত ও বেইসলোড বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধির মাধ্যমে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে সহায়তা করা সম্ভব হবে।
প্রকল্পের আওতায় প্রধান কার্যক্রম হচ্ছে- পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র ১ ও ২ নম্বর ইউনিটের বিস্তারিত ডিজাইন তৈরি, প্রশিক্ষণ, সরঞ্জাম সংগ্রহ, এলটিএমই সংগ্রহ, দুটি ইউনিট নির্মাণ, পারমাণবিক জ্বালানি সংগ্রহ, কমিশনিং ও টেস্টিং ইত্যাদি। এ ছাড়া প্রকল্প ব্যবস্থাপনায় ৩৬৯ জন এবং পরমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের অন্যান্য কাজ পরিচালনার জন্য ২ হাজার ৫৩৫ জন জনবল নিয়োগ, প্রকৌশল সরঞ্জাম স্থাপন, বিভিন্ন ধরনের কম্পিউটার, এক্সেসরিজ ও সফটওয়্যার সংগ্রহ, ভূমি অধিগ্রহণ, পূর্ত নির্মাণ কাজ করা হবে।


SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: