৮ এপ্রিল, ২০১৫

৮ বছর পর বিমানের যশোর-ঢাকা রুটে ফ্লাইট চালু

আট বছরেরও বেশি সময় পর ঢাকা-যশোর রুটে নতুন করে চালু হলো রাষ্ট্রীয় উড়োজাহাজ সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফাইট। সোমবার রাতে যশোর বিমান বন্দরে বর্ণাঢ্য আয়োজনে এর উদ্বোধন করেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক। এর আগে ঢাকা থেকে যাত্রী নিয়ে বিমানের একটি ফাইট যশোর আসে। রাষ্ট্রীয় সংস্থার বিমান এতদিন ওই রুটে না চললেও বেসরকারি তিনটি কোম্পানি ঢাকা-যশোর রুটে নিয়মিত উড়োজাহাজ চালায়।
পাকিস্তান আমল থেকে ঢাকা-যশোর রুটে রাষ্ট্রীয় সংস্থা (প্রথমে পিআইএ, পরে বাংলাদেশ বিমান) যাত্রীবাহী উড়োজাহাজ চালিয়ে আসছে। কিন্তু অব্যাহত লোকসান ও অন্যান্য কারণ দেখিয়ে ২০০৭ সালের এপ্রিলে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ঢাকা-যশোর রুটে যাত্রীবাহী উড়োজাহাজ চালানো বন্ধ করে দেয়।
লোকসানের অজুহাত দেখানো হলেও বেসরকারি সংস্থাগুলো ঠিকই ব্যবসা করে যাচ্ছে। বর্তমানে ঢাকা-যশোর রুটে তিনটি বেসরকারি সংস্থা যাত্রীবাহী উড়োজাহাজ চালাচ্ছে। বিমানের ডিস্ট্রিক্ট ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ শাজাহান জানান, সোমবার রাতে ঢাকা থেকে যাত্রী নিয়ে যশোরে ল্যান্ড করে বিমানের একটি ফাইট। এসময় যশোর বিমানবন্দরে বণার্ঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে জনশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।
বিশেষ অতিথি ছিলেন যশোর সদর আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক ড. হুমায়ুন কবীর, পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহিত কুমার নাথ, সাইফুল ইসলাম তুহিন ছাড়াও সরকারি কর্মকর্তা ও বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথিসহ বিমান যাত্রীদের ফুলেল শুভেচ্ছা ও মিষ্টিমুখ করান এমপি নাবিল আহমেদ।
মোহাম্মদ শাজাহান জানান, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স আপাতত যশোরে একটি করে ফাইট অপারেট করবে। এটি সন্ধ্যা ছয়টা ১৫ মিনিটে ঢাকা থেকে উড্ডয়ন করে ছয়টা ৪০ মিনিটে যশোরে নামবে। ড্যাশ-৮ ব্র্যান্ডের উড়োজাহাজটিতে আসন সংখ্যা ৭৪। আপাতত ভাড়া জনপ্রতি দুই হাজার ৭০০ টাকা। এই ভাড়ায় একমুখী ভ্রমণ করা যাবে চলতি মাসের শেষ দিন পর্যন্ত।
এদিকে, ঢাকা-যশোর রুটে বেসরকারি তিনটি সংস্থা ফাইট অপারেটর করছে। সংস্থাগুলো হলোÑ ইউনাইটেড এয়ার, নোভো এয়ার এবং ইউএস-বাংলা।
এর মধ্যে ইউএস-বাংলা সকাল-বিকেল দুটি ফ্লাইট এবং অন্য দুটি কোম্পানি শুধু সন্ধ্যায় একটি করে ফাইট অপারেট করে। বেসরকারি সংস্থাগুলোর উড়োজাহাজে জনপ্রতি ভাড়া সর্বনিন্ম সাড়ে তিন হাজার থেকে সর্বোচ্চ সাড়ে পাঁচ হাজার টাকা। ইউএস-বাংলার যশোর অফিসের ব্যবস্থাপক সাব্বির হোসেন মনে করেন, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ফাইট চালু করায় প্রতিযোগিতা বাড়বে। তবে শুধু টিকিটের দামের ওপর সবকিছু নির্ভর করে না। যথাযথ সার্ভিস দেওয়াটাও খুব গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার।
প্রসঙ্গত, বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন কয়েক মাস আগে যশোরে এসেছিলেন একটি কর্মসূচিতে যোগ দিতে। সে সময় যশোর চেম্বার অব কমার্সের নেতারা জেলা ওয়ার্কার্স পার্টি অফিসে গিয়ে মন্ত্রীর কাছে বিমানের ঢাকা-যশোর ফাইট চালুর দাবি জানান। মেনন তখন তাড়াতাড়ি এই রুটে বিমানের ফাইট চলবে বলে ব্যবসায়ী নেতাদের আশ্বাস দিয়েছিলেন।
আট বছর পর বিমানের যশোর অফিসের কার্যক্রম গত মাসে শুরু হয়েছে। নিযুক্ত হয়েছেন নতুন ডিস্ট্রিক ব্যবস্থাপক। শহরের পুরাতন কসবা এলাকায় বিমানের এই অফিসটি গত আট বছর পাহারা দিয়েছে আনসার সদস্যরা।

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: