২ এপ্রিল, ২০১৫

স্বপ্ন দেখানো দল

সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের নিয়ে যশোর সরকারি এমএম কলেজের ছাত্রছাত্রীদের ফেসবুক গ্রুপের উদ্যোগে পিকনিকের আয়োজন করা হয়। ২২ মার্চ অনুষ্ঠিত সেই আয়োজনে ১৭ সুবিধাবঞ্চিত শিশু অংশ নেয়। পৌর পার্কের সেই পিকনিকে সকাল থেকে চলে শিশুদের অংশগ্রহণে খেলাধুলাসহ নানা আয়োজন। দুপুরে আয়োজন করা হয় আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠান থেকে ১৭ সুবিধাবঞ্চিত শিশুকে বইসহ দেয়া হয় নানা উপহার সামগ্রী।

উপহার হিসেবে বই পেয়ে পার্কে বসেই তার পাঠোদ্ধারে মনোনিবেশ করে বেশ কয়েকজন। তাদেরই একজন সিরাজুল ইসলাম নিবিড়। নতুন বইয়ের পাতা খসখসিয়ে নিবিষ্ট মনে যেন নিজের স্বপ্ন বুনছে। কিছুক্ষণ আগেই বইটির সঙ্গে তাকে দেয়া হয়েছে দুপুরের খাবারও। কিন্তু বইটিই যেন তার মনোযোগের কেন্দ্রবিন্দু।

কথা বলে জানা গেল, যশোর শহরের কাজীপাড়ায় নানার বাড়িতে থাকে সিরাজুল ইসলাম নিবিড়। পড়ালেখা করে পুরাতন কসবা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীতে। বছর তিনেক আগে বাবা মারা গেছেন। জীবিকার তাগিদে সংসারের পরম আপনজন মা ছেড়ে চলে গেছেন ঢাকায়। তিনি সেখানে একটি গার্মেন্টে কাজ করেন। মমতাময়ী জননীর পরম স্নেহবঞ্চিত নিবিড় মাকে ভবিষ্যতে নিজের কাছে রাখতে চায়। মাঝ রাতে মাঝেমধ্যেই সে স্বপ্ন দেখে মাকে নিজের কাছে নিয়ে এসেছে। সোমবার তার সেই স্বপ্ন যেন নতুন ডালপালা মেলে।

আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণীতে সভাপতিত্ব করেন যশোর সরকারি এমএম কলেজের ফেসবুক গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক শান্ত খান। প্রধান অতিথি হিসেবে গ্রামের কাগজের সম্পাদক মবিনুল ইসলাম মবিন, বিশেষ অতিথি হিসেবে প্রেসক্লাব যশোরের সম্পাদক এসএম তৌহিদুর রহমান, ফটোজার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মনিরুজ্জামান মনির উপস্থিত ছিলেন।

এসময় বক্তব্য রাখেন ফেসবুক গ্রুপের সদস্য রূপা খন্দকার, পরমা পাল, হারুন-অর-রশিদ, মারুফ হোসেন, রাকিব হাসান, শাহিন হোসেন, আশিকুর রহমান শিমুল, মামুন মেহমুদ, নুসরাত প্রমুখ।

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: