২১ ফেব, ২০১৫

মামলার ভারে দিশেহারা যশোর বিএনপি

হরতাল-অবরোধে রাজনৈতিক টানাপোড়েনে চলছে যশোর জেলা বিএনপি। একদিকে নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড, অন্যদিকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হয়রানি। পুলিশের একের পর এক মামলায় দিশেহারা হয়ে পড়ছে বিএনপি। জেলা ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাদের নামে এ পর্যন্ত ১৫টি মামলা করেছে পুলিশ। এতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলামসহ জেলার শীর্ষ নেতারা রয়েছেন। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্র জানায়, জাতীয় নির্বাচনের বর্ষপূর্তি ৫ জানুয়ারিকে কেন্দ্র করে যে রাজনৈতিক অস্থিরতা শুরু হয়েছে ক্রমেই তা বাড়ছে। বিভিন্ন স্থানে যানবাহনে হামলা, পেট্রলবোমা নিক্ষেপ ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটছে নিয়মিত। এছাড়া প্রায়ই শহরে ঘটছে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা। এ ছাড়া গত এক মাসে বিভিন্ন স্থানে যানবাহন ভাঙচুরের বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটে। এসব ঘটনায় বিএনপির জাতীয়    স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলামসহ স্থানীয় বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল এবং জামায়াতে ইসলামী ও ছাত্রশিবিরের শীর্ষ ও মাঝারি সারির সব নেতার নামে অন্তত ১৫টি মামলা হয়েছে। মামলাগুলোর বাদী পুলিশ। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের দায়দায়িত্ব কে বা কারা নেবে এমন প্রশ্নের জবাবে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু এবং নগর সভাপতি ও যশোর পৌরসভার মেয়র মারুফুল ইসলাম বলেন, নাশকতামূলক কোনো ঘটনার সঙ্গেই বিএনপি জড়িত নয়। বিএনপি নেতাকর্মীরা আত্মরক্ষার্থে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। অথচ তাদের নামে মামলার পাহাড় জমছে।অন্যদিকে, সহিংসতা প্রতিরোধের নামে পুলিশি অ্যাকশনও চলছে সহিংস কায়দায়। হরতাল-অবরোধ কর্মসূচি চলাকালে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের রাজপথে নামতেই দেয়নি পুলিশ। এমনকি জিয়াউর রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে দলীয় কার্যালয়ে মিলাদ মাহফিলে অংশ নিতে গিয়েও আটক হয়েছেন বিএনপির নেতারা। সাম্প্রতিক সময়ে পুলিশের বিরুদ্ধে উত্থাপিত নানা অভিযোগ প্রসঙ্গে যশোরের পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান বলেন, আদিকাল থেকে পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ হয়ে আসছে। এসব অভিযোগ কখনো বন্ধ হবে না। এর মধ্য দিয়ে আমরা আমাদের দায়িত্ব পালন করে যাব।

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: