৩০ জানু, ২০১৫

যশোর বিএনপি নেতাদের নামে ফের মামলা

যশোরে বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনায় বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট সৈয়দ সাবেরুল হক সাবুসহ ৫৫ জনের বিরুদ্ধে আরও দুটি মামলা হয়েছে। ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইন এবং বিস্ফোরকদ্রব্য আইনে মামলা দুটি করেছেন উপশহর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মিজানুর রহমান চৌধুরী।

কোতয়ালী থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই জহুরুল আলম জানিয়েছেন, বুধবার রাত ১১টার দিকে শহরতলীর কিসমত নওয়াপাড়া এলাকায় একটি বাস (যশোর-ব-২২৯) পার্কিং করা ছিল। দৃর্বৃত্তরা সেটিতে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় এবং বোমার বিস্ফোরণ ঘটায়। এই ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে ৫৫ জনকে আসামী করে আলাদা দুটি মামলা হয়েছে।

এই মামলায় বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু, সহ-সভাপতি গোলাম রেজা দুলু, সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন খোকন, দলের জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলামের ছেলে জেলা বিএনপির সদস্য অনিন্দ্য ইসলাম অমিত, নগর কমিটির সভাপতি ও পৌরসভার মেয়র মারুফুল ইসলামসহ ২০ দলীয় জোটের গুরুত্বপূর্ণ নেতাকর্মীদের আসামী করা হয়েছে।

তবে কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইনামুল হক এ ব্যাপারে কথা বলতে রাজি হননি।

এদিকে বুধবার গভীর রাতে বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম ছাড়াও দলের জেলা পর্যায়ের শীর্ষ কয়েক নেতার বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বোমা হামলার ব্যাপারে এখনও মামলা হয়নি। পুলিশ বোমা হামলার ব্যাপারটি চেপে যাওয়ার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এমনকি বোমা হামলার পর ঘটনাস্থলের ফুটেজ টেলিভিশনে দেখানোর ‘অপরাধে’ এক টিভি সাংবাদিককে শাসিয়েছেন কোতয়ালী থানার ওসি। জেলা পুলিশের মুখপাত্র ও সদর সার্কেলের সিনিয়র এএসপি রেশমা শারমিনকে বিষয়টি জানিয়েছেন স্থানীয় সাংবাদিক নেতারা। এএসপি রেশমা শারমিন জানিয়েছেন, তিনি বিষয়টি দেখবেন।

প্রসঙ্গত, এর আগে যশোরে যানবাহন পোড়ানোর ঘটনায় তরিকুল ইসলামসহ ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতাদের নামে বেশ কয়েকটি মামলা করেছে পুলিশ। এ সব মামলায় গ্রেফতার এড়াতে গ্রাম-শহরের শত শত নেতাকর্মী আত্মগোপনে রয়েছেন।

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: