২৬ জানু, ২০১৫

মধুমেলার চতুর্থ দিন আজ

মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের ১৯১ তম জন্মবার্ষিকী পালন উপলক্ষে শুক্রবার থেকে তার জন্ম¯হান যশোর কেশবপুরের সাগরদাঁড়িতে সপ্তাহ ব্যাপী মধুমেলার আজ চতুর্থ দিনে মধুমেলা জমে উঠেছে।
প্রতিবছরের ন্যায় এবারও এ মেলায় দেশ-বিদেশের হাজার হাজার মধুভক্ত এখানে  এসে ভিড় জমাচ্ছেন।
মেলার মাঠে সোভা পাচ্ছে কৃষি মেলা, নাগরদোলা, পুতুলনাচ, যাত্রা, সাক্রাস, কুঠির শিল্প, চুড়ি, কাপড় সহ প্রায় ৭ শতাধিক বিভিন্ন প্রসাধনীর স্টল।
১৮২৪ খ্রিস্টাব্দে ২৫ জানুয়ারী বাংলা সাহিত্যের কালজয়ী মহাপুরুষ যুগশ্রেষ্ঠ, অমিত্রাক্ষর ছন্দের জনক মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্ত যশোরের কেশবপুরের কবতক্ষের পাড়ে সাগরদাড়ী গ্রামে এক বিখ্যাত জমিদার পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন।
তার পিতা জমিদার ও আইনজীবী রাজনারায়ন দত্ত, মাতা জাহৃবীদেবী। মধুসূদন শৈশবে মাতা জাহৃবী দেবী, শিক্ষক হরলাল রায় ও সাগরদাঁড়ির শেখপুরা গ্রামের মৌলভী খন্দকার মখমল আহমদের কাছে বাংলা ও ফারসি শিক্ষা লাভ করেন।
এখানে শৈশব কাটিয়ে মধুকবি তার জন্মের ১০ বছর পর কলকাতার খিদিরপুরে  চলেযান। সেখানে বিভিন্ন ভাষায় জ্ঞানার্জন করেন তিনি।
১৮৪৮ খ্রিস্টাব্দে তিনি আবার তার জন্মভূমি সাগরদাঁড়ীতে ফিরে আসেন। এরই মধ্যে তিনি মহাকাব্য মেঘনাথবধ,  কাব্য ব্রজঙ্গনা, বীরাঙ্গনা, ও তিলোত্তমা সম্ভব রচনা করেন।
১৮৭৩ খ্রিস্টাব্দে ২৯জুন মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্ত কলকাতায় একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অব¯হায় তিনি না ফেরার দেশে চলে যান।
এদিকে কবির স্কৃতি ধরে রাখতে প্রতি বছর সাগরদাঁড়িতে তার জন্মবার্ষিকী পালন হয়ে আসছে।
আজ (২৫ জানুয়ারী) কবির জন্মদিন হলেও এস এস সি পরীক্ষার কারনে সরকার এবারের মেলা ২৫ জানুয়ারীর পরিবর্তে ২৩ জানুয়ারী পালনের সিদ্ধান্ত প্রহন করেছেন। চলবে ২৯ জানুয়ারী পর্যন্ত।

SHARE THIS

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios: